পৃথিবীর সবচেয়ে বড় মাটির মসজিদ

অবিশ্বাস্য হলেও সত্যি যে পৃথিবীর সবচেয়ে বড় মসজিদ মাটির তৈরি। গ্র্যান্ড মস্ক অব ডিজনি পৃথিবীর বৃহত্তম মসজিদ। যা তৈরি হয়েছে মাটি দিয়ে।

পশ্চিম আফ্রিকার মালির ডিজনি শহরে এই মসজিদটি অবস্থিত। মধ্যযুগে আফ্রিকার এই অঞ্চলের ইসলামি শিক্ষা বিস্তারের প্রাণ কেন্দ্র ছিল মসজিদটি।

১২০০ শতাব্দী থেকে ১৩০০ শতাব্দীর মধ্যবর্তি সময়ে নির্মান করা হয় এটি। তবে বর্তমান গবেষকরা এর বর্তমান কাঠামো দেখে ধারণা করছেন মসজিদটি ১৯০৭ সালে নির্মান করা হয়েছে।

বানি নদীর তীরে অবস্থিত এই মসজিদটি নির্মানে ব্যবহার করা হয়েছে মাটি। মসজিদটি ২৪৫ ফুট দৈর্ঘ এবং ২৪৫ ফুট প্রস্থ।

মাটি থেকে ৩ ফুট উঁচু ভিটেতে স্থাপিত হয়েছে এর মুল কাঠামো।

ইন্টারনেট ছবি

মনোমুগ্ধকর কারুকাজ এবং নির্মানশৈলিতে মসজিদটি ও এর চারপাশের ঐতিহ্যবাহী স্থানগুলোকে বিশ্ব ঐতিহ্য (World Heritage) হিসেবে ১৯৮৮ সালে ঘোষণা করে ইউনেস্কো।

মসজিদটি নির্মান করেন সুলতান কুনবরু। ইসলাম গ্রহন করার পর নিজের প্রাসাদ ভেঙে নির্মান করেন “গ্র্যান্ড মস্ক অব ডিজনি” নামের এই মসজিদটি।

সেই সাথে মসজিদের পুর্ব দিকে নিজের বসবাসের জন্য তৈরি করেন অন্য একটি প্রাসাদ।

সুলতানের মৃত্যুর পর তার উত্তরাধিকারীরা মসজিদের দুটি টাওয়ার ও এর চারপাশের দেয়াল নির্মান করেন।

১৯২৮ সালের আগ পর্যন্ত এই মসজিদটি অজানা ছিলো। ১৯২৮ সালে ফরাসি পর্যটক আফ্রিকার এই অঞ্চল ভ্রমন করেন।

তিনি তার ভ্রমন বিষয়ক বইতে এই মসজিদের বর্ণনা করেন।

তিনি লিখেন” জিজনি শহরে মাটির তৈরি একটি মসজিদ আছে। মসজিদের দুই পাশে দুইটি কম উচ্চতার টাওয়ার আছে”

ধারণা করা হয় রেনের বর্ণনার পর থেকেই “গ্র্যান্ড মস্ক অব ডিজনি” মসজিদটি সম্পর্কে মানুষের আগ্রহ বাড়তে থাকে।

প্রতি বছর স্থানীয় মুসলমানরা মসজিদটির সংস্কার করে আসছেন। ২০০৬ সালের ২০ জানুয়ারি মসজিদের ছাদের একটি অংশ এবং ২০০৯ সালের ৫ নভেম্বর দক্ষিণের টাওয়ারের একটি অংশ ভেঙে পড়লে “দ্য আগা খান ট্রাস্ট কালচার” নিজস্ব অর্থায়নে এটির সংস্কার করে।

শেয়ার করুনঃ
আরো পড়ুনঃ  এন্টার্কটিকা মহাদেশের ২০ টি অজানা তথ্য