বিড়ালের শহরে আপনাকে স্বাগতম

মালয়েশিয়ার কু চিং শহরকে বিড়ালের শহর বলা হয়। এর নামকরন ও বিড়ালের নামে।

কারন মালয় ভাষায় কু চিং মানে হল বিড়াল।

এয়ারপোর্ট থেকে শহরে ঢুকতে গেলেই চোঁখে পড়বে বিড়াল আর বিড়াল। রাস্তার সৌন্দর্যবর্ধনে পানির ফোয়ারা বা কারুকাজের দেখা না মিললেও দেখা মিলবে শত শত বিড়ালের ভাষ্কর্য।

মাঝপতে গাড়ি থেকে নামতে গেলে বা দরজা খুললেই টুপ করে ভেতরে ঢুকে পড়বে এক বা একাধিক বিড়াল।

বিড়ালের ভাস্কর্য

কিংবা আপনার পার্ক করা গাড়ি ঢেকে রাখবে শত শত রং বেরঙের বিড়াল। যদিও বিষয়টা খুবই উপভোগ করেন পর্যটকরা।

এখানেই শেষ নয়, শহরে রিতিমত রয়েছে “বিড়াল যাদুঘর” ।

শহরের এমন নামকরনের পেছনেও রয়েছে মজাদার এক কাহিনি। ১৮৩৯ সালে জেমস ব্রুক নামের একজন বৃটিশ নাগরিক বেড়াতে আসেন এখানে।

স্থানীয় এক ব্যক্তিকে শহরের নাম জিজ্ঞেস করেন তিনি। ইংরেজি না বুঝা ঐ নাগরিক তার পাশের বিড়ালটি দেখে মনে করেন এই প্রাণীটির নাম জানতে চাচ্ছেন ব্রুক। তিনি উত্তর দেন “কু চিং” ।

পরবর্তিতে ব্রুক দেশে ফিরে তার ভ্রমণকাহিনীতে এই শহরের নাম উল্লেখ করেন “কু চিং”

সেই থেকে এ শহরের নাম পড়ে যায় “কু চিং”

শেয়ার করুনঃ
আরো পড়ুনঃ  ২৫ কোটি টাকা দান করেন প্রতিদিন